Print

পূর্ব বায়তুল মুকাদ্দাসকে ফিলিস্তিনের রাজধানী ঘোষণা করল ওআইসি

অনুসন্ধান  صفحه اصلی خبر মতামতজরিপ  :   Thursday, December 14, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 27940

পূর্ব বায়তুল মুকাদ্দাসকে ফিলিস্তিনের রাজধানী ঘোষণা করল ওআইসি

 স্পেশাল ডেস্ক: পূর্ব বায়তুল মুকাদ্দাস শহরকে ফিলিস্তিনের রাজধানী ঘোষণা করেছে ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা বা ওআইসি। পাশাপাশি আমেরিকার পদক্ষেপকে ‘বিপজ্জনক’ বলে তা প্রত্যাখ্যান করেছেন মুসলিম দেশগুলোর নেতারা এবং আন্তর্জাতিক সমাজকে ওআইসি’র পদক্ষেপ অনুসরণ করার আহ্বান জানিয়েছেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পবিত্র বায়তুল মুকাদ্দাস শহরকে ইহুদিবাদী ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার এক সপ্তাহ পর তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরে বুধবার ওআইসি’র বিশেষ জরুরি শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় এবং মুসলিম নেতারা ফিলিস্তিনকে স্বাধীন দেশ ও পূর্ব বায়তুল মুকাদ্দাসকে তার রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিতে আন্তর্জাতিক সমাজের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

সম্মেলন শেষে কড়া যৌথ বিবৃতি প্রকাশ করেছেন ওআইসি’র নেতারা। এতে তারা বলেছেন, “৫৭ জাতির এ জোট দুই রাষ্ট্রভিত্তিক সমাধানের বিষয়ে ন্যায্য ও পূর্ণাঙ্গ শান্তির প্রতি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ রয়েছে।” এছাড়া, ফিলিস্তিনের ওপর থেকে ইহুদিবাদী ইসরাইলের দখলদারিত্বের অবসান ঘটানোর জন্য এ বিবৃতিতে জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। পাশাপাশি মার্কিন ড্রোনাল্ড ট্রাম্প যদি তার অবৈধ সিদ্ধান্ত থেকে সরে না আসেন তাহলে সমস্ত পরিণতির জন্য তাকে দায়ী থাকতে হবে সতর্ক করা হয়েছে।

ওআইসি’র নেতারা কঠোর নিন্দা প্রকাশ করে বলেছেন, “আমরা মনে করি এটা বিপজ্জনক এক ঘোষণা যার লক্ষ্য হচ্ছে বায়তুল মুকাদ্দাসের আইনগত মর্যাদা পাল্টে দেয়া; ট্রাম্পের এ ঘোষণা বাতিল করা হলো এবং এর কোনো বৈধতা নেই।”

বিশ্লেষণও নোট :

ওআইসি

|

বায়তুল মুকাদ্দাস

|

ফিলিস্তিনি

|

Print

অন্যদের শিক্ষা দেয়ার আগে নিজেকে শিক্ষিত করা আবশ্যক

অনুসন্ধান  صفحه اصلی خبر মতামতজরিপ  :   Wednesday, December 13, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 27939

অন্যদের শিক্ষা দেয়ার আগে নিজেকে শিক্ষিত করা আবশ্যক      

মাহদাবিয়াত বিভাগ: আমিরুল মু’মিনিন হযরত আলী(আ.) বলেছেন, মানুষের দায়িত্ব হচ্ছে অন্যকে কিছু শিক্ষা দেয়ার পূর্বে সেটাকে নিজে আমল করা এবং তা নিজের জীবনে বাস্তবায়ণ ঘটানো।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: তিনি আরও বলেছেন, আমি কোন জিনিস বা বিষয় নিজে আমল না করে কখনোই অন্যকে তা করার নির্দেশ দেই নি।

মাওলা আলী(আ.) বলেছেন: «مَن نَصَبَ نَفسَهُ للنّاسِ إماما فليَبدأ بتَعليمِ نَفسِهِ قَبلَ تَعليمِ غَيرِهِ ، و ليَكُن تأديبُهُ بسِيرَتِهِ قَبلَ تأديبِهِ بلِسانِهِ ، و مُعَلِّمُ نَفسِهِ و مُؤدِّبُها أحَقُّ بالإجلالِ من مُعَلِّمِ النّاسِ و مُؤدِّبِهِم»  যারা নিজেকে সমাজের নেতা হিসাবে মনে করে তাদের উচিত অন্যদেরকে কিছু শিক্ষা দেয়ার পূর্বে নিজে প্রশিক্ষিত হওয়া। মানুষকে কথার মাধ্যমে শিক্ষা দেয়ার চেয়ে কাজের মাধ্যমে শিক্ষা দেয়া উচিত। কেননা যে নিজেকে শিক্ষিত ও ভদ্র হয় এবং অন্যদেরকে শিক্ষা দেয় সে সম্মান পাওয়ার যোগ্য।

যে নিজে আমল করে অন্যদেরকে শিক্ষা দেয় তার প্রভাব অনেক বেশী হয়। একজন শিক্ষককে অবশ্যই নৈতিক ও আধ্যাত্মিক হতে হবে। নিজের আত্মশুদ্ধির পর অন্যদের আত্মশুদ্ধির জন্য চেষ্টা করতে হবে।

বিশ্লেষণও নোট :

নিজেকে শিক্ষিত করা আবশ্যক

|

অন্যদের শিক্ষা দেয়ার আগে

|

মানুয়ের আত্মশুদ্ধির প্রয়োজন

|

Print

মনোবাসনা পূর্ণ হওয়ার জন্য ইমাম মাহদীর(আ.) উপদেশ

অনুসন্ধান  صفحه اصلی خبر মতামতজরিপ  :   Wednesday, December 13, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 27938

মনোবাসনা পূর্ণ হওয়ার জন্য ইমাম মাহদীর(আ.) উপদেশ      

মাহদাবিয়াত বিভাগ: ইমাম মাহদী(আ.) মনের আশা পূর্ণ হওয়ার জন্য করণীয় সম্পর্কে আমাদেরকে হাদিসের মাধ্যমে নির্দেশনা দিয়েছেন।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: যদিও ইমাম মাহদী(আ.) অন্তর্ধানে রয়েছেন এবং আমরা তাকে দেখতে পাইন না। তাপরও তিনি আমাদের দায়িত্ব কর্তব্য সম্পর্কে অনেক নির্দেশনা দিয়েছেন।

ইমাম মাহদী(আ.) থেকে বর্নিত হয়েছে: যারা আল্লাহর নির্দেশ বাস্তবায়নে সচেষ্ট হবে আল্লাহ তাদের মনের আশা পূর্ণ করে দিবেন। এবং তার সকল মনোবাসনা পূর্ণ হবে।

675802

বিশ্লেষণও নোট :

ইমাম মাহদীর(আ.) উপদেশ

|

মনোবাসনা পূর্ণ হওয়ার জন্য

|

আল্লাহর নির্দেশ

|

Print

মৃত্যুর ভয় মানুষকে গুনাহ থেকে বিরত রাখে

অনুসন্ধান  صفحه اصلی خبر মতামতজরিপ  :   Wednesday, December 13, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 27937

মৃত্যুর ভয় মানুষকে গুনাহ থেকে বিরত রাখে

মায়ারেফ বিভাগ: পবিত্র কোরআনের আয়াতের বর্ণনা অনুযায়ী প্রত্যেক জীবকেই এ পৃথিবীতে মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করতে হবে। অর্থাৎ এ পৃথিবীর কোন মানুষ এমনকি প্রাণীই মৃত্যুর হাত থেকে রেহাই পাবে না।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ ও গবেষক হযরত আয়াতুল্লাহ রুহাল্লাহ কারাহি গতকাল এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে বলেন: আল্লাহর ওলী, মু’মিন ও খোদাভীরু ব্যক্তিরা কখনও বাতিল ও অন্যায়ের কাছে মাথা নত করে না। বরং তারা একমাত্র আল্লাহকে ভয় করে এবং আল্লাহ যা কিছু থেকে বিরত থাকতে বলেছেন, সেগুলো থেকে দূরে থাকে। মৃত্যু ও মৃত্যু ব্যক্তিকে কখনও ঈমানদাররা ভয় পায় না; কেননা মৃত্যুর সকলের জন্য নির্ধারিত, নির্দিষ্ট সময়ে এবং স্থানে প্রত্যেককে মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করতে হবে। আর মৃত্যু ব্যক্তিও কখনও ভয় পাবার কোন জিনিস নয়; কেননা একজন মৃত্যু ব্যক্তি প্রাণহীন এবং তার পক্ষে কারও কোন ক্ষতি করার ক্ষমতা নেই; সে নিজেও অক্ষম। কিন্তু তথাপিও একশ্রেণীর ব্যক্তি মৃত্যু ব্যক্তিকে বা মৃত ব্যক্তি শরীরকে জীবিত কোন শক্তিশালী ও ক্ষমতাবান ব্যক্তির চেয়েও বেশি ভয় পেয়ে থাকে; এটা সত্যিও অশ্চর্যের বিষয়।

তিনি আরও বলেন: গুনাহ ও অন্যায় কর্ম থেকে বিরত থাকা সর্বাবস্থায় উত্তম ও কাংখিত। সেটা মৃত্যুর ভয়ে হোক অথবা জাহান্নামের আজাবের ভয়ে হোক না কেন। আমাদের সমাজে অনেকের আছেন যারা মৃত্যুর ভয়ে গুনাহ ও নাফরমানি থেকে বিরত থাকে; অবস্য এটা মোটেও দোষনীয় নয়; বরং সমীচীন বটে।

বিশ্লেষণও নোট :

মৃত্যুকে

|

মৃত্যু সম্পর্কে

|

মৃত্যু

|

Print

জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণার অধিকার ট্রাম্পের নেই

অনুসন্ধান  صفحه اصلی خبر মতামতজরিপ  :   Wednesday, December 13, 2017 নির্বাচিত সংবাদ : 27936

জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণার অধিকার ট্রাম্পের নেই

মায়ারেফ বিভাগ: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের অভিভাবক পরিষদের সভাপতি হযরত আয়াতুল্লাহ আহমাদ জান্নাতি বলেছেন যে, জেরুজালেম মুসলিম জাহানের সম্পদ; যেখানে মুসলিম উম্মাহর প্রথম কিবলা বায়তুল মুকাদ্দাস অবস্থিত। সুতরাং জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণার বিন্দুমাত্র অধিকার ট্রাম্পের নেই।

শাবিস্তান বার্তা সংস্থার রিপোর্ট: ইরানের অভিভাবক পরিষদের সভাপতি হযরত আয়াতুল্লাহ আহমাদ জান্নাতি আজ বুধবার এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে বলেন: ইহুদিবাদি ইসরাইল বছরের পর বছর ধরে ফিলিস্তিনিদের ভূখন্ড দখল করে সেখানে অবৈধভাবে বসতি গড়ে তুলেছে; আর এখন মার্কিন প্রেসিডেন্ট আন্তর্জাতিক আইন-কানুনকে কোন ধরনের তোয়াক্কা না করে জেরুজালেমকে অবৈধ ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা করেছে। এ বিষয়টি একদিকে যেমন হাস্যকর অপরদিকে তেমন ন্যাক্কারজনক। তাই মুসলিম জাহানের উচিত ট্রাম্পের এমন ঘোষণার বিরুদ্ধে রুখে দাড়ান।

তিনি বলেন: ডোনাল্ড ট্রাম্প যে অপমানজনক পদক্ষেপ নিয়েছেন তা অত্যন্ত বিদ্বেষপূর্ণ এবং এর বিরুদ্ধে ফিলিস্তিন ও মুসলিম বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দাঁড়াতে হবে। মার্কিন প্রেসিডেন্টের এ ঘোষণার মধ্যদিয়ে পরিষ্কার হয়ে গেছে যে, তারা আদৌ সরকারিভাবে ফিলিস্তিনি জনগণের অধিকার স্বীকার করে না।

এ সময় তিনি ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলনগুলোকে ইহুদিবাদী ইসরাইল ও আমেরিকার জঘন্য ষড়যন্ত্রের কঠোর জবাব দেয়ার আহ্বান জানান।

বিশ্লেষণও নোট :

ডোনান্ট ট্রাম্প

|

ট্রাম্পের

|

ফিলিস্তিনি

|

Islamic News